মসজিদে ছবিযুক্ত ব্যানার টানিয়ে দোয়া-মোনাজাত, সমালোচনার মুখে আওয়ামী লীগ-সময় প্রবাহ নিউজ

তাওহীদ ইসলাম
বরিশাল প্রতিনিধি
মেহেন্দিগঞ্জের ৩নং চর এককরিয়া ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের উদ্যোগে মসজিদে ছবি সম্বলিত ব্যানার টানিয়ে দোয়া মোনাজাতের অনুষ্ঠানের ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকাবাসীর মধ্যে ক্ষোভ ও অসন্তোষ বিরাজ করছে।

জানা গেছে, বুধবার (২৩ সেপ্টেম্বর) বিকেলে শান্তির হাট জামে মসজিদে স্থানীয় সংসদ সদস্য পংকজ দেবনাথের রোগমুক্তি কামনা করে দোয়া মোনাজাতের আয়োজন করা হয়।

দোয়া মোনাজাত অনুষ্ঠানে মসজিদের ভেতরে টানানো হয় ছবি সম্বলিত ব্যানার। এ নিয়ে ওই সময় দোয়া মোনাজাতে আগত মুসল্লিরা ভয়ে মুখ না খুললেও সন্ধ্যা থেকে মসজিদে ছবি লাগানোর ঘটনায় এলাকায় সমালোচনার ঝড় ওঠে। এমনকি ছবিটি সোস্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। ছবিটি নিয়ে সোস্যাল মিডিয়া ফেসবুকে নানান মন্তব্য এসেছে। কেউ কেউ বলছেন- অতি উৎসাহী হয়েই ধর্মের কোন আইন কানুন মানছেন না ওই নেতার অনুসারীরা। আবার কেউ কেউ বলছেন পরিকল্পিতভাবে এমপি পংকজ দেবনাথের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করার জন্য মসজিদে ছবি সম্বলিত ব্যানার টানানো হয়েছে এবং এর ছবি তুলে ফেসবুকে আপলোড করা হয়েছে। অনেকে আবার এহেন কান্ডে দিক্কার জানিয়েছেন।

এ ব্যাপারে সাধারণ মুসল্লীরা বলেন এমপির লোকজন তারা ক্ষমতা দেখিয়ে ছবি যুক্ত ব্যানার টানিয়ে দোয়ার আয়োজন করে তাদের বিরুদ্ধে কেউ কিছু বলতে গেলে তাদের বিভিন্ন সমস্যায় পড়তে হয়। তাই সবাই নিরব দর্শক হিসাবে থাকে।

দোয়া মোনাজাত পরিচালনাকারী মসজিদের ইমাম বলেছেন, হঠাৎ করে দলীয় অনেক লোকজন এসে ব্যানারটি টানিয়ে দেয়। আমি কোন প্রতিবাদ করতে পারিনি।

এব্যাপারে দোয়া মোনাজাতে উপস্থিত উপজেলা কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ রুহুল আমিন পলাশ প্রথমে বিষয়টি এড়িয়ে যেতে চাইলেও তার উপস্থিতির কথা জিজ্ঞেস করলে তিনি বলেন, আমি ব্যানার টানানোর ব্যাপারে কিছুই জানিনা। ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ ব্যানারটি টানিয়েছে।

এ ব্যাপারে ৩নং চর এককরিয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মকিম তালুকদার বলেন, এই মসজিদে দোয়া মোনাজাতে অনুষ্ঠানে আমি ছিলাম না। আমাকে না জানিয়ে করেছে অনুষ্ঠানটি করেছে রুহুল আমিন পলাশ। ঐখানে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদকও ছিলনা।
এ দিকে এই ঘঠনায় প্রতিবাদ জানিয়েছে জাতীয় ইমাম সমিতি, জাতীয় ওলামায় আইয়াম্মা পরিষদ, ইসলামি আন্দোলন বাংলাদেশ মেহেন্দিগঞ্জের উপজেলার নেতৃবৃন্দ।

Share
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *